আজ সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ১০:৫৭ অপরাহ্ন

Logo
সংবাদ শিরোনাম:
লক্ষ্মীপুরে নৌ-পুলিশ কর্মকর্তার ঘুষের কথোপকতন ভাইরাল

লক্ষ্মীপুরে নৌ-পুলিশ কর্মকর্তার ঘুষের কথোপকতন ভাইরাল

কিশোর কুমার দত্ত, মো. ই্উসুফ,নিজস্ব প্রতিবেদক: লক্ষ্মীপুরে মজুচৌধুরীরহাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই অচিন্ত্য কুমার দে এর জেলেদের কাছ থেকে ঘুষ বাণিজ্যের কথোপকতন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করছে জেলেরা। তবে অভিযুক্ত অচিন্ত্য কুমার দের দাবী,  ফোন আলাপটি তার নয়, তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। বিডিবাংলানিউজ টোয়েন্টি ফোর ডট কম ’র পাঠকদের জন্যে  তুলে ধরা হলো।

ইনচার্জ: হ্যাঁ দাদা

জেলে: স্যার ওন এক লাখ টাকা  রাজি করাইছি গরীব মানুষ কান্দা কাটি করে।

ইনচার্জ: আরে শুনে আমি এমনিতো একটা জালও ছাড়িনা। ৩০ হাজার টাকা করে বহু  জাল  ছাড়ছি।——————————-।  এ খন তো অভিযান চলে।  কি বুজতে পারছেন। কি কইছি বুজছেন। এখন অভিযান চলে।

জেলে: জে স্যার

ইনচার্জ: এমনিতে  একটা জাল ধরলে আমরা ৩০/২৫/৩৫ হাজার নিই।  কি কইছি বুজছেন। নৌকা আর জাল দুইটা কি কইছি বুজছেন। নারে ভাই এটা হবেনা।

জেলে: স্যার গরীব মানুষ এক লাখ টাকা কইছি। যদি ছেড়ে দেন।

ইনচার্জ: না এক লাখ টাকা হবেনা।

জেলে: স্যার আন্নে দেড় লাখ কইছেন, আমি একলাখ কইয়া দিছি বুজছেন।

ইনচার্জ: আমি তিন টিয়া  কইছি আন্নে যখন বলছেন,  এর আগে  বাবুল মেম্বার আর  জাবেদ ফোন দিয়েছে। আমি তাদের সাথে কথাই কইছিনা।  আমি তাদের কে বলছি এসব বাদ দেন। তারা বলছে হাজি সাহেবের জাল। বলছি হাজি সাহেবকে বলে দেন জাল নৌকা দুইটাই আটক। বাবুল মেম্বার আর জাবেদ তো তারা তো চার্জই পাইনি।  আপনি কথা বলছেন বিদায় আমিও বলছি বুজছেন। অন্য কারো রে চার্জ দিই নাই কথাও বলি নাই । শুধু আপনিব বলছেন. বিদাই, আমি বলছি। বুজছেন এখন এটা হবেনা।

জেলে: আইচ্চা ঠিক আছে  স্যার আমি কথা বলে আপনাকে জানাবো। বিস্তারিত শুনতে এ লিংকে ক্লিক করুন 

Video link

এইভাবে পুলিশ কর্মকর্তা অচিন্ত্য কুমার দে ও জেলে পক্ষের ঘুষ  লেনদেনের কথোপকতন অডিও প্রকাশ হয়। তবে এ পুলিশ কর্মকর্তার ঘুষ বানিজ্যে চলছে দীর্ঘদিন। নদীতে জেলেরা তার কাছে ছিল জিম্মি। টাকা না দিলে নৌকা আটক ও জাল নিয়ে পুড়িয়ে ফেলতে বলে অভিযোগ করেন অনেক জেলে। এভাবে মেঘনা নদীর জেলেদের কাছ থেকে ঘুষ নিতেন এ পুলিশ কর্মকর্তা। বিশেষ করে নদীতে অভিযানের সময় তার ঘুষের রমরমা বানিজ্যে চলতো বলে জানান জেলেরা। একটি বিশ্বস্ত সূত্রে এ প্রতিবেদকদের জানিয়েছেন,ইতিমধ্যে মৎস্য বিভাগ থেকে এ পুলিশ কর্মকর্তার অনিয়ম দূনীর্তি,ঘুষ বানিজ্য ও দায়িত্ব পালনে অসযোগিতার অভিযোগ এনে উর্ধ্বতন কর্তৃৃপক্ষকে বিষয়ে জানানো হয়েছে।

 


© স্বত্ব ২০২০ | About-US | Privacy-PolicyContact