আজ বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ০৬:১৫ অপরাহ্ন

Logo
সংবাদ শিরোনাম:
লক্ষ্মীপুরে দুই শিশু ছাত্রকে নির্যাতন, অধ্যক্ষসহ গ্রেপ্তার দুই লক্ষ্মীপুরে রায়পুরে আগুনে পুড়ে ২৮ দোকান ছাই, ১৫ কোটি টাকার ক্ষতি মিয়ানমারে নিরাপত্তাবাহিনীর গুলিতে ১৮ জন নিহতের ঘটনায় বিশ্বজুড়ে নিন্দা পুলিশ ও ছাত্রদলের সংঘর্ষ: বিএনপির ৪৭ নেতাকর্মীকে আসামি করে মামলা লেখক মুশতাকের মৃত্যুর ঘটনায় প্রতিবেদন আদালতে দাখিল জাটকা সংরক্ষন-ইলিশের উৎপাদন বাড়াতে মেঘনায় ২মাস সকল ধরনের মাছ ধরা বন্ধ প্রেসক্লাবের সামনে ছাত্রদল-পুলিশ সংঘর্ষ, আহত শতাধিক রায়পুর পৌরসভা নির্বাচন: ককটেল বিস্ফোরন, আটক-১, জরিমানা তরুণদের কর্মসংস্থান ও উন্নয়ন বাড়াতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী দাবি আদায়ে তিন দিনের আলটিমেটাম শিক্ষার্থীদের
মিয়ানমারের জান্তা সরকারকে হুঁশিয়ারি জাতিসংঘের

মিয়ানমারের জান্তা সরকারকে হুঁশিয়ারি জাতিসংঘের

নিজস্ব প্রতিবেদক:

মিয়ানমারের জান্তা সরকারকে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে জাতিসংঘ বলেছে যে, বিশ্ব সবই দেখছে। জাতিসংঘের শীর্ষ মানবাধিকার সংস্থা মিয়ানমারকে অং সান সু চি ও অন্যান্য কর্মকর্তাদের মুক্তি দেয়ার এবং সামরিক অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে প্রতিবাদকারী মানুষের প্রতি সহিংসতা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছে।

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক উপ হাই কমিশনার নাদা আল নাশিফ বলেন, ‘বিশ্ব সবই দেখছে। মিয়ানমারের প্রতিবাদী জনগণের বিরুদ্ধে সামরিক বাহিনীর সহিংসতা এবং মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়টি কারো দৃষ্টির বাইরে থাকবে না।’ খবর আল জাজিরার।

শুক্রবার জেনেভায় জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদের জরুরি বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন। নাশিফ বলেন, ‘এটি পরিষ্কার যে, শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারীদের ওপর প্রাণঘাতী কিংবা প্রাণঘাতী নয়- নির্বিচারে এমন কোনো অস্ত্র ব্যবহার গ্রহণযোগ্য হতে পারে না।’

৪৭ সদস্যের জেনেভা ফোরাম বিনা ভোটে ব্রিটেন ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেয়া একটি প্রস্তাব গ্রহণ করেছে। যদিও রাশিয়া ও চীন এই প্রস্তাবে একমত হয়নি। তবে মিয়ানমারের দূত বলেছেন যে ভোট ছাড়া এই প্রস্তাব গ্রহণযোগ্য নয়।

জাতিসংঘের মানবাধিকার তদন্তকারীদের দ্বারা এই প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। ওই প্রস্তাবে মিয়ানমারের ওপর শাস্তিমূলক নিষেধাজ্ঞা, অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা ও ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার কথা বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র নিজস্ব নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল, এই সপ্তাহে ফোরামে ফিরে আসার পর থেকে মানবাধিকার কাউন্সিলের প্রথম মন্তব্যে জাতিসংঘের অন্যান্য সদস্য দেশকেও তা অনুসরণ করার আহ্বান জানিয়েছে।

মিয়ানমারে জাতিসংঘের মানবাধিকার সংক্রান্ত তদন্তকারী অফিসার অ্যানড্রু টমাস জানিয়েছেন, জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের উচিত অবিলম্বে মিয়ানমারের উপরে আর্থিক, সামরিক এবং সফর সংক্রান্ত নিষেধাজ্ঞা জারি করা।

তার কথায়, ‘বিভিন্ন রিপোর্ট ও ছবি থেকে আমরা এই প্রমাণ পেয়েছি যে গত কয়েক দিনে বিক্ষোভ ঠেকাতে সেনার নির্দেশে আগ্নেয়াস্ত্রের প্রয়োগ করেছে পুলিশ। যা আন্তর্জাতিক আইনের পরিপন্থী। এই পরিস্থিতিতে আমার প্রস্তাব, অবিলম্বে মায়ানমারের সেনা কর্তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হোক।’ প্রায় একই বার্তা দিয়েছেন ব্রিটেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডমিনিক রাব। তিনিও জানিয়েছেন, সেনা অভ্যুত্থানের খবর প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই তাদের সরকার মিয়ানমারে সুষ্ঠু গণতন্ত্র ফেরানোর দাবি জানিয়েছে।

গত ১ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারে নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করে ক্ষমতা দখল করে দেশটির সামরিক বাহিনী। দেশটির রাজনৈতিক নেতা, সরকারের মন্ত্রী ও কর্মকর্তাদের আটক করা হয়েছে। এর বিরুদ্ধে বিক্ষোভে নেমেছে সাধারণ মানুষ কিন্তু তাদের ওপর সামরিক বাহিনী হামলা চালাচ্ছে বলে খবর বের হয়েছে। এরপরই জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদের পক্ষ থেকে এই হুঁশিয়ারি এলো।

এর আগে নিউজিল্যান্ড মিয়ানমারের সঙ্গে সব সম্পর্ক ছিন্ন করেছে। এছাড়া মিয়ানমারের সামরিক নেতাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।


© স্বত্ব ২০২০ | About-US | Privacy-PolicyContact