আজ সোমবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৩:২৬ অপরাহ্ন

Logo
লক্ষ্মীপুরে গৃহবধুর গায়ে আগুন দিয়ে হত্যার চেষ্টা,গ্রেপ্তার এক

লক্ষ্মীপুরে গৃহবধুর গায়ে আগুন দিয়ে হত্যার চেষ্টা,গ্রেপ্তার এক

নিজস্ব প্রতিবেদক :

লক্ষ্মীপুরে গলার স্বর্ণের চেইনকে কেন্দ্র করে রাশেদা বেগম নামে এক গৃহবধুর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দিয়ে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় নির্যাতিত নারীর ভাই তারেক উদ্দিন  বাদী হয়ে সদর থানায একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় ৪ জনের নাম উল্লেখ করে আরো ৪জনের নাম অজ্ঞাত আসামী করা হয়। বুধবার সকালে এ মামলা দায়ের করা হয়। এরপর মামলার এজাহারভূক্ত আসামী মাইন উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।  সদর উপজেলার চরউভূতি এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মঙ্গলবার বিকেলে সদর উপজেলার ভবানীগঞ্জ ইউনিয়নের চরউভূতি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা মুমুর্ষ অবস্থায় ওই গৃহবধুকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক রাতে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে প্রেরণ করেন। বর্তমানে রাশেদা সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন। গৃহবধু রাশেদা একই গ্রামের জাহের হোসেন এর স্ত্রী।

পুলিশ ও স্বজনরা জানায়, প্রায় এক বছর পূর্বে বিয়েতে উপহার পাওয়া একটি স্বর্ণের গলার চেইন গৃহবধু রাশেদার কাছে রাখে তারই দেবর ফারুক। বিষয়টি জানতে পেরে দেবেরর শ্বশুর মাইন উদ্দিন গোচ্ছিত রাখা চেইনটি রাশেদার কাছে দাবী করে। স্বর্ণের চেইনটি দেবকেই ফেরত দিবেন বলে জানায় রাশেদা। এতে ক্ষিপ্ত হয় শ্বশুর মাইন উদ্দিন। এদিকে রাশেদার ঘরে আসা-যাওয়ার মাঝে স্বর্ণের কানের দুলসহ গলার চেইনটি কৌশলে চুরি করে নিয়ে যায় নববধু। পরে রাশেদার কাছে উপহার পাওয়া চেইনটি ফেরত চায় দেবর। কিন্তু চেইনটি ফেরত দিতে না পারায় গত ৬ মাস পূর্বে দেবরের শ্বশুড় বাড়ির লোকজন রাশেদাকে আগুনে পুড়ে হত্যার চেষ্টা করে। এনিয়ে রাশেদার বাবা লক্ষ্মীপুর আদালতে একটি মামলাও দায়ের করেন বলে জানায় স্বজনরা।

ঘটনার দিন বিষয়টি পারিবারিক ভাবে মিমাংসার জন্য গৃহবধু রাশেদার স্বামীর বাড়ি আসেন দেবরের শ্বশুর বাড়ির লোকজন। বৈঠকে মতের অমিল হওয়ায় আবারও ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেছে দেবরের শ্বশুর মাইন উদ্দিন। এক পর্যায়ে কয়েকজন মিলে হত্যার উদ্দেশ্যে বাড়ির পাশে নির্জনে গৃহবধু রাশেদার গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয়। এ সময় রাশেদা শোর চিৎকার করে বলতে থাকে তার দেবরের শ্বশুর মাইন উদ্দিনের নেতৃত্বে  শাহজাহান, লিটন, আশরাফসহ কয়েকজন হত্যার জন্য তার গায়ে আগুন লাগিয়ে দিয়েছেন। পরে স্থানীয়রা ঘটনাস্থল থেকে মুমুর্ষ অবস্থায় গৃহবধুকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়।

সদর হাসপাতালে আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আনোয়ার হোসেন বলেন, গৃহবধূ রাশেদা বেগমের শরীরের ৫০ শতাংশ পুড়ে গেছে। তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে প্রেরণ করা হয়েছে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জসিম উদ্দিন জানান, একটি স্বর্ণের চেইনকে কেন্দ্র করে পরিকল্পিত ভাবে কেরোসিন ঢেলে গৃহবধূর গায়ে আগুল লাগিয়ে দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় ৪ জনকে আসামী করে থানায় মামলা হয়। একজনকে গ্রেপ্তার। অন্য আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশ তৎপর রয়েছে।


© স্বত্ব ২০২০ | About-US | Privacy-PolicyContact