আজ শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ১০:৩৯ অপরাহ্ন

Logo
সংবাদ শিরোনাম:
স্পুটনিক ভি ১ ডোজই যথেষ্ট: দাবি রাশিয়ার লক্ষ্মীপুরে ব্যাক্তি উদ্যোগে ৭ দিনের খাবার পেল ২ হাজার পরিবার আসন্ন মহামারিটি ধ্বংসাত্মক হবে বলে বিশ্ববাসীকে সতর্ক করেছেন প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার পেল লক্ষ্মীপুরে ২৯ হাজার হতদরিদ্র পরিবার দূনীর্তির অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় লক্ষ্মীপুরে রামগতি উপজেলা চেয়ারম্যান পূর্নবহাল লক্ষ্মীপুরে জমে উঠেছে ঈদ বাজার,স্বাস্থ্যবিধি মানছেনা ক্রেতা-বিক্রেতা লক্ষ্মীপুরে থানার ওসির কাছে মাদক ব্যবসা না করার প্রতিশ্রুতি,ফুল দিয়ে বরণ লক্ষ্মীপুরে আশ্রয়নকেন্দ্র অগ্নিকান্ডে পুড়ে গেছে ৮টি ঘর লক্ষ্মীপুরে সড়ক দূর্ঘটনা যুবলীগ নেতা নিহত,আহত-এক স্বাস্থ্যবিধি মনে চলুন,সরকার আপনাদের পাশে আছে: প্রধানমন্ত্রী
লক্ষ্মীপুরে মসজিদে তালা, বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী, মানবন্ধনের চেষ্টায়, পুলিশের বাধা

লক্ষ্মীপুরে মসজিদে তালা, বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী, মানবন্ধনের চেষ্টায়, পুলিশের বাধা

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি
জমি বিরোধকে কেন্দ্র করে লক্ষ্মীপুরে সাঙ্গিভাঙ্গা সওদাগর বাড়ি জামে মসজিদে তালা দিয়েছে ফজলুর রহমান পাপ্পু। এতে করে মুসিল্লদের মধ্যে চরম ক্ষোভ উত্তোজনা বিরাজ করছে। এ ঘটনার প্রতিবাদ ও জড়িতদের গ্রেপ্তারের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল ওমানববন্ধন করতে গেলে পুলিশ বাধা দেয়। শুক্রবার জুমার পর সদর উপজেলার সানকীভাঙ্গা এলাকার মসজিদের সামনে এ বিক্ষোভ কর্মসুচির ডাক দেয় মুসল্লিরা। জুমা শেষে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করতে গেলে পুলিশ বাধাঁ দিলে মুসল্লিরা মসজিদের সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে করে।
এর আগে মঙ্গলবার দুপুরে মসজিদে তালা দেয় স্থানীয় প্রভাবশালী ফজলুর রহমান পাপ্পু। সে স্থানীয় দেলোয়ারের ছেলে। ঘটনায় জড়িত ফজলুর রহমান পাপ্পুকে গ্রেপ্তারের দাবীতে মানববন্ধনের চেষ্টা করেন মুসল্লিরা। এসময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে পুলিশ এসে বাধা দিলে মানববন্ধন পন্ড হয়ে যায়। পরে পুলিশের উপস্থিতিতে বিক্ষোভ করেন তারা। এসময় বক্তব্য রাখেন, মসজিদ কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. সহিদ মাস্টার, সহ-সভাপতি গোলাম কিবরিয়া সিহাব, সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান মোক্তাদা’সহ স্থানীয় মুসল্লিরা।
এ সময় বক্তরা বলেন, স্থানীয় একটি জমি বিরোধকে কেন্দ্র মঙ্গলবার দুপুরে দেলোয়ারের ছেলে ফজলুর রহমান পাপ্পু মসজিদে তালা লাগিয়ে দেয়। বিচার চেয়ে মুসল্লিরা ফুঁসে উঠলে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। পরে খবর পেয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শেখ মুজিবুর রহমান এসে তালা ভেঙ্গে মসজিদ উন্মুক্ত করে দেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে তিনিও মুসল্লিদেরবে শান্ত থাকার পরামর্শ দিয়ে বিচারের আশ্বস্ত করেন।
মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান মোক্তাদা জানান, বিক্ষুদ্ধ মুসল্লিরা মানববন্ধনের কর্মসূচি নিয়ে ছিলো। পুলিশের বাধার মুখে মানববন্ধন করতে না পেরে বিক্ষোভ করেন তারা।
অপরদিকে মানববন্ধনের খবর পেয়ে শুক্রবার জুম্মার নামাজের সময় মসজিদে আসেন ইউপি চেয়ারম্যান। তিনি মুসল্লিদের মানববন্ধন না করার অনুরোধ করেন। তিনি বলেন, মসজিদে তালা দেওয়া অন্যায়। এজন্য তার বিচার হবে। এছাড়া জমি সংক্রান্ত কোন বিরোধ থাকলে বসে সেটার মিমাংসা করা হবে। এ দিকে ঘটনার পর থেকে ফজলুর রহমান পাপ্পু পলাতক থাকায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। মুঠোফোনটিও পাওয়া বন্ধ।
স্থানীয়রা জানান, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানায় শুক্রবার দুপুরে পুলিশের উপস্থিতিতে বিক্ষোভ করেন মুসল্লিরা। পরে পুলিশ ও স্থানীয় চেয়ারম্যান বিচারের আশ্বাস দিলে বিক্ষোভ সমাবেশ তুলে নেন মুসল্লিরা।
চন্দ্রগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ এ কে ফজলুল হক জানান, জমি নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে একটি ছেলে মসজিদে তালা দিয়েছে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ও স্থানীয় চেয়ারম্যান গিয়ে তালা ভেঙ্গে মসজিদ উন্মুক্ত করে দেয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুক্রবার মুসল্লিরা মানববন্ধনের চেষ্টা করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে পুলিশ পাঠানো হয়।


© স্বত্ব ২০২০ | About-US | Privacy-PolicyContact