আজ শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০১:৪০ অপরাহ্ন

Logo
সংবাদ শিরোনাম:
স্পুটনিক ভি ১ ডোজই যথেষ্ট: দাবি রাশিয়ার লক্ষ্মীপুরে ব্যাক্তি উদ্যোগে ৭ দিনের খাবার পেল ২ হাজার পরিবার আসন্ন মহামারিটি ধ্বংসাত্মক হবে বলে বিশ্ববাসীকে সতর্ক করেছেন প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার পেল লক্ষ্মীপুরে ২৯ হাজার হতদরিদ্র পরিবার দূনীর্তির অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় লক্ষ্মীপুরে রামগতি উপজেলা চেয়ারম্যান পূর্নবহাল লক্ষ্মীপুরে জমে উঠেছে ঈদ বাজার,স্বাস্থ্যবিধি মানছেনা ক্রেতা-বিক্রেতা লক্ষ্মীপুরে থানার ওসির কাছে মাদক ব্যবসা না করার প্রতিশ্রুতি,ফুল দিয়ে বরণ লক্ষ্মীপুরে আশ্রয়নকেন্দ্র অগ্নিকান্ডে পুড়ে গেছে ৮টি ঘর লক্ষ্মীপুরে সড়ক দূর্ঘটনা যুবলীগ নেতা নিহত,আহত-এক স্বাস্থ্যবিধি মনে চলুন,সরকার আপনাদের পাশে আছে: প্রধানমন্ত্রী
খুলছে শপিংমল ও মার্কেট, প্রথম দিনে উপেক্ষিত স্বাস্থ্যবিধি

খুলছে শপিংমল ও মার্কেট, প্রথম দিনে উপেক্ষিত স্বাস্থ্যবিধি

অনলাইন ডেস্ক:

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় দেশে কঠোর বিধি-নিষেধ আরো করে সরকার। ফলে এখনো দেশে দ্বিতীয় সপ্তাহের বিধি নিষেধ চলছে। তবে ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোর চাপে কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যে খুলে দেয়া হলো শপিংমলগুলো। এর আগে গত ২৩ তারিখ স্বাস্থ্যবিধি মেনে মার্কেট খোলার অনুমতি দেয় সরকার। তবে এখনো বন্ধ রয়েছে গণ পরিবহন।

মার্কেট খোলার প্রথম দিন বিক্রেতাদের কাটছে অনেক দিন বন্ধ দোকান গুছানো, ঝার পোচ করতে করতে। অনেকেই দোকান খুলে মালামাল সাজাতে ব্যস্ত। তবে গণ পরিবহন বন্ধ থাকায় ক্রেতাদের ভিড় তেমন একটা নেই। রাজধানীর নিউ মার্কেট, গাউছিয়া, এলিফেন্ট রোড, ফার্মগের এলাকা ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে। অনেকে ভিড় এড়ানোর জন্য নিজস্ব পরিবহনে এসেছেন কেনাকাটা করতে।

রাজধানীর নিউ মার্কেট এলাকায় দেখা গেছে, দোকান খুলতেই কিছু ক্রেতা এসেছেন। তারা বলছেন তাদের কিছু জরুরি কেনাকাটা করতে হবে বলে মার্কেটে এসেছেন। তবে অনেককেই স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করতে দেখা গেছে। কেউ কেউ মুখে মাস্ক পড়লেও মানছেন না সামাজিক দূরত্ব।

এদিকে মার্কেট খোলার প্রথম দিনেই রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়েছে। গণপরিবহণ না চললেও মার্কেট ও অফিস খোলা। তাই অনেকে বাধ্য হয়ে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে গন্তব্যে ছুটছেন। সড়কে গণ পরিবহণ না থাকলেও ব্যক্তিগত গাড়ির চাপে সৃষ্টি হয়েছে তীব্র যানজট। সপ্তাহের প্রথম কর্মদিবসে এমন যানজটে গণ পরিবহন না থাকায় বিপাকে পড়েছেন অনেকে।

কথা হয় রাজধানীর সাইনবোর্ড এলাকার বাসিন্দা গুলিস্তানের কাপড় ব্যবসায়ী আহসান তাহের আলির সঙ্গে। তিনি বলেন, অনেক দিন পর মার্কেট খোলার অনুমতি দিয়েছে সরকার। কিন্তু গণপরিবহন খুলেনি। দোকান খুলতে বাসা থেকে বের হয়ে বিপদে পড়ে গেলাম। রাস্তায় কোনো গাড়ি নেউ। লকডাউনের মধ্যে সিএনজি অটো রিকশা পাওয়া গেলেও এখন সেগুলো আকাশের চাঁদ হয়ে গেছে। আবার দু’একটি সিএনজি পাওয়া গেলেও চালকরা ভাড়া চাচ্ছেন কয়েকগুন। ফলে বিপদে পড়তে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে।

রাস্তায় গাড়ি না পেয়ে অনেককেই পায়ে হেটে কর্মস্থলে যেতে দেখা গেছে। কেউ কেউ বাড়তি ভাড়া দিয়ে যাচ্ছেন। এমন কি বাড়তি ভাড়া দিয়েও সড়কে গাড়ি মিলছে না।


© স্বত্ব ২০২০ | About-US | Privacy-PolicyContact