আজ সোমবার, ০৩ মে ২০২১, ০৭:১৪ অপরাহ্ন

Logo
সংবাদ শিরোনাম:
লক্ষ্মীপুরে জমে উঠেছে ঈদ বাজার,স্বাস্থ্যবিধি মানছেনা ক্রেতা-বিক্রেতা লক্ষ্মীপুরে থানার ওসির কাছে মাদক ব্যবসা না করার প্রতিশ্রুতি,ফুল দিয়ে বরণ লক্ষ্মীপুরে আশ্রয়নকেন্দ্র অগ্নিকান্ডে পুড়ে গেছে ৮টি ঘর লক্ষ্মীপুরে সড়ক দূর্ঘটনা যুবলীগ নেতা নিহত,আহত-এক স্বাস্থ্যবিধি মনে চলুন,সরকার আপনাদের পাশে আছে: প্রধানমন্ত্রী লক্ষ্মীপুরে বাস চালুর দাবিতে বিক্ষোভ লক্ষ্মীপুরে চিরনিদ্রায় সাংবাদিক ফয়সল নিষেধাজ্ঞার দুই মাস পর মেঘনায় মাছ ধরতে গিয়ে খালি হাতে ফিরছে জেলেরা লক্ষ্মীপুরে হতদরিদ্রদের মাঝে ঈদ উপহার দিলেন পৌর মেয়র লক্ষ্মীপুর প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের সাথে মেয়র প্রার্থী মাসুম ভূঁইয়ার ইফতার
নিষেধাজ্ঞার দুই মাস পর মেঘনায় মাছ ধরতে গিয়ে খালি হাতে ফিরছে জেলেরা

নিষেধাজ্ঞার দুই মাস পর মেঘনায় মাছ ধরতে গিয়ে খালি হাতে ফিরছে জেলেরা

নিজস্ব প্রতিবেদক:

নিষেধাজ্ঞার দুইমাস পর লক্ষ্মীপুরের মেঘনা নদীতে মাছ ধরা পুরোদমে শুরু হয়েছে। কিন্ত মাছ না পাওয়ায় মাছঘাটগুলোতে অলস সময় পার করছেন জেলে ও আড়ৎতদাররা। নিষেধাজ্ঞা উঠে যাবার পর জাল ফেলা ও মাছ শিকারে নদীতে ব্যস্ত সময় পার করছেন জেলেরা। মাছ পাওয়া যাচ্ছেনা। মাছ না পাওয়ায় হতাশায় ভুগছেন। পাশাপাশি দাদনের টাকা নিয়েও দু:চিন্তায় তাদের চোখে মুখে।

শনিবার সকালে সদর উপজেলার মজুচৌধুরীরহাট মাছঘাটে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মাছঘাটে আড়ৎদাররা অলস সময় কাটাচ্ছেন। কেউবা টেবিলের ওপরে ঘুমাচ্ছেন। কিন্তু সবাই তাকিয়ে আছে মেঘনা নদীতে মাছ শিকারে যাওয়া জেলেদের দিকে। কিন্তু জেলেরা ঠিকই আসছে। তবে মাছ নিয়ে নয়,খালি হাতে। একই অবস্থায় মতিরহাট, লধূয়াঘাট, চরআলেকজান্ডার, চেয়ারম্যানঘাট, সাজু মোল্লার ঘাট ও মোল্লারহাটসহ অন্তত ২০টি ছোট-বড় ঘাটের চিত্র।

এসময় জেলে মিজান,মিন্টু,সালাম উল্যাহ,কালু মাঝি ও সরাফতসহ অনেকের সাথে কথা হয়। সবাই জানায়, ২ মাস মাছ ধরা বন্ধ ছিল। মধ্যরাত থেকে নিষেধাজ্ঞা উঠে যাবার পর নদীতে মাছ শিকারে নামছেন। তবে মাছ কম পাওয়া যাচ্ছে। এতে করে ইঞ্জিন চালিত নৌকা খরচও উঠবেনা। সারাদিন নদীতে জাল ফেলে যে মাছ পাওয়া গিয়েছে, সেটা নিয়ে ইঞ্জিন চালিত নৌকার তৈলের খরচও হয়না। জেলেদের আশা ছিল। মাছ ধরে তা বিক্রি করে মহাজনদের দাদনের টাকা পরিশোধ করবে। কিন্তু এখন মাছ না পাওয়া চরম দু:চিন্তায় পড়েছেন মেঘনা পাড়ের অর্ধলক্ষাধিক জেলের।

জাটকা সংরক্ষন ও ইলিশের উৎপাদন বাড়ানোর লক্ষ্যে লক্ষ্মীপুরের রামগতির আলেকজান্ডার থেকে চাঁদপুরের ষাটনাল এলাকার ১শ’ কিলোমিটার পর্যন্ত মার্চ-এপ্রিল দুই মাস ইলিশসহ সকল ধরনের মাছ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল মৎস্য বিভাগ। এসময় সব রকমের ইলিশ সংরক্ষন, আহরন, পরিবহন, বাজারজাত করন ও মজুদকরনের ওপর ছিল নিষেধাজ্ঞা ছিল। নিষেধাজ্ঞার দুই মাস মার্চ-এপ্রিল এবং পরের মে-জুনসহ চার মাস প্রতি জেলেকে ৪০ কেজি হারে ভিজিএফের চাল বরাদ্ধ দিয়েছে সরকার। ইতিমধ্যে দুই মাসের ভিজিএফের চাল পেলেও অন্য দুই মাসের চাল এখনো পায়নি বলে অভিযোগ করেন জেলেরা। এই জেলায় প্রায় ৫২ হাজার জেলে রয়েছে। সবাই মেঘনা নদীতে মাছ শিকার করে জীবিকা নির্বাহ করে।

এ দিকে জেলা মৎস্য অফিসার বিল্লাল হোসেন জানান,. প্রশাসন,পুলিশ,কোষ্টগার্ড ও মৎস্য বিভাগের যৌথ অভিযানে এবারের অভিযান সফল হয়েছে। মধ্য রাত থেকে নদীতে নামছে জেলেরা। মাছ ধরা পড়ছে। তবে সামনে মাছ আরো বেশি ধরা পড়বে বলে আশা করেন তিনি। এছাড়া গত বছরের চেয়ে এবার মাছের উৎপাদন বাড়বে। উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে ২৫ হাজার মে.টন। যাহা গত বছরের চেয়ে ৫ হাজার মে.টন বেশি।


© স্বত্ব ২০২০ | About-US | Privacy-PolicyContact