আজ মঙ্গলবার, ০৪ মে ২০২১, ০৭:৩৭ অপরাহ্ন

Logo
সংবাদ শিরোনাম:
প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার পেল লক্ষ্মীপুরে ২৯ হাজার হতদরিদ্র পরিবার দূনীর্তির অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় লক্ষ্মীপুরে রামগতি উপজেলা চেয়ারম্যান পূর্নবহাল লক্ষ্মীপুরে জমে উঠেছে ঈদ বাজার,স্বাস্থ্যবিধি মানছেনা ক্রেতা-বিক্রেতা লক্ষ্মীপুরে থানার ওসির কাছে মাদক ব্যবসা না করার প্রতিশ্রুতি,ফুল দিয়ে বরণ লক্ষ্মীপুরে আশ্রয়নকেন্দ্র অগ্নিকান্ডে পুড়ে গেছে ৮টি ঘর লক্ষ্মীপুরে সড়ক দূর্ঘটনা যুবলীগ নেতা নিহত,আহত-এক স্বাস্থ্যবিধি মনে চলুন,সরকার আপনাদের পাশে আছে: প্রধানমন্ত্রী লক্ষ্মীপুরে বাস চালুর দাবিতে বিক্ষোভ লক্ষ্মীপুরে চিরনিদ্রায় সাংবাদিক ফয়সল নিষেধাজ্ঞার দুই মাস পর মেঘনায় মাছ ধরতে গিয়ে খালি হাতে ফিরছে জেলেরা
লক্ষ্মীপুরে জমে উঠেছে ঈদ বাজার,স্বাস্থ্যবিধি মানছেনা ক্রেতা-বিক্রেতা

লক্ষ্মীপুরে জমে উঠেছে ঈদ বাজার,স্বাস্থ্যবিধি মানছেনা ক্রেতা-বিক্রেতা

নিজস্ব প্রতিবেদক:

লক্ষ্মীপুরে জমে উঠেছে ঈদ বাজার। লকডাউন ও স্বাস্থ্যবিধি মানছেনা ক্রেতা-বিক্রেতা। প্রতিটি মার্কেটে রয়েছে উপচেপড়া ভিড়। স্যানিটাইজার ও স্বাস্থ্যসুরক্ষা সামগ্রীর কোন ব্যবস্থা নেই বললে চলে। তবে এ বিষয়ে ক্রেতা-বিক্রেতা একে অপরকে দুষছেন। এদিকে পুলিশ সুপার ও জেলা প্রশাসক বলছেন, লকডাউন ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে কঠোর অবস্থানে রয়েছে প্রশাসন। প্রতিনিয়ত ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা অব্যাহত রয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানা যায়, লক্ষ্মীপুরের ৫টি উপজেলা ও চন্দ্রগঞ্জ থানা এলাকাসহ জেলা শহরের পৌর বিপনী বিতান, পৌর সুপার মার্কেট. মসজিদ মার্কেট, আউট লুক, মুক্তিযোদ্ধা মার্কেট, বুটিক হাউজ,জিয়া কমপ্লেক্স, গাজীকমপ্লেক্স, সোহাগ, সুচয়ন ও অঙ্গশোভাসহ বিভিন্ন মার্কেটগুলোতে দেখা গেছে উপছে পড়া ভিড়। কেউ মানছেনা স্বাস্থ্যবিধি। যে যার মত করে মার্কেট ও শপিংমল বেচা-কিনা করছে। সবাই সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বাধ্যবাধকতা থাকলেও কারও মাঝে নেই কোন সচেতনতা। এতে করে করোনা সংক্রমন আরো বাড়ার আশংকা করছেন স্থানীয়রা।

এ দিকে ব্যবসায়ী নুর হোসেন,নুর আলম,আবদুর রহমান ও জিয়াউর রহমানসহ অনেকেই জানান, ঈদ বাজার আগের চেয়ে জমে উঠেছে। বিক্রিও অনেক ভালো। পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রতিষ্ঠান চালানোর কথা বললেও বাস্তবে তার চিত্র উল্টো। আবার অনেক ব্যবসায়ী ক্রেতাদের দায়ী করে বলছেন, বারবার স্বাস্থ্যবিধি ও মাস্ক ব্যবহারের বিষয়ে বললেও ক্রেতারা তা মানছেনা বলে অভিযোগ করেন ব্যবসায়ীরা।

ক্রেতা নুর নাহার,আমেনা বেগম ও ইউসুফ হোসেন জানান, সরকার স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান-পাট খোলা রাখার নির্দেশনা দিলেও কোন ব্যবসায়ী তা মানছেনা। বেশিরভাগ মার্কেটে নেই স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা। যে যার মত করে চলাফিরা ও বেচা-কিনা করছে। কেউ মানছেনা লকডাউনের নিয়ম কানুন। প্রতিটি মার্কেটে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে বললেও তার নূনতম মানা হচ্ছেনা। এতে করে করোনা সংক্রমন আরো বাড়ার আশংকা করছেন ক্রেতারা।

এদিকে পুলিশ সুপার ড.এএইচএম কামরুজ্জামান ও জেলা প্রশাসক মো. আনোয়ার হোসেন আকন্দ বলছেন, লকডাউন ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে কঠোর অবস্থানে রয়েছে প্রশাসন। মাকের্টগুলো যেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে সেদিকে প্রশাসনের নজর রয়েছে। যারা স্বাস্থ্যবিধি ও বা লকডাউন মানবেনা তাদের বিরুদ্ধে প্রতিনিয়ত ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে। এটি অব্যাহত রাখার ঘোষনা দেন এ দুই কর্মকর্তা।


© স্বত্ব ২০২০ | About-US | Privacy-PolicyContact