আজ শুক্রবার, ১৮ Jun ২০২১, ১২:৫২ অপরাহ্ন

Logo
সংবাদ শিরোনাম:
জেলেকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ, চেয়ারম্যানসহ ২৭জনকে আসামী করে মামলা বিএনপি আসলে ভালো হতো, নির্বাচনে কোন অনিয়ম হলে ভোট বন্ধ হবে : সিইসি জনবল সংকটে বেহাল লক্ষ্মীপুরে রায়পুর হ্যাচারী, উৎপাদন ব্যাহত লক্ষ্মীপুর-২ আসনে উপ-নির্বাচন: জমে উঠেছে প্রচার-প্রচারনা,নানা অভিযোগ লক্ষ্মীপুরে দুই আম ব্যবসায়ীর দেহে ভারতীয় ভেরিয়েন্ট করোনার ধরন শনাক্ত লক্ষ্মীপুরে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ, ভাংচুর,আহত ১০ বিয়ের পিঁড়ীতে বসা হলোনা সালাউদ্দিনের,লক্ষ্মীপুরে গ্রামের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম নতুন সেনাপ্রধান হিসেবে নিয়োগ পেলেন জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ করোনা সংক্রমন বাড়ায় ১৬৫ ইউপির নির্বাচন স্থগিত লক্ষ্মীপুরে ইটভাটা মালিক ডিপজলকে ৬মাসের কারাদন্ড
লক্ষ্মীপুরে ১১ দোকান উচ্ছেদ, ব্যবসায়ীদের কান্না

লক্ষ্মীপুরে ১১ দোকান উচ্ছেদ, ব্যবসায়ীদের কান্না

নিজস্ব প্রতিবেদক:

লক্ষ্মীপুরে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী এ কে এম শাহাজাহান কামাল এমপি’র জেলা শহরের বাসভবনের সামনে অবস্থিত ১১ টি দোকান ঘর গুড়িয়ে দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। শনিবার (২৯ মে) সকাল থেকে সন্ধ্যায় পর্যন্ত শহরের চকবাজার এলাকার এসব দোকান খাস খতিয়ান ভুক্ত সম্পত্তিতে অবৈধভাবে গড়ে উঠেছে উল্লেখ করে বুলডেজার দিয়ে গুড়িয়ে দেয়া হয়।
তবে ব্যবসায়ীদের দাবী জেলা পরিষদ থেকে ইজাড়া নিয়ে গত ৭০ বছর ধরে দোকান ঘর নির্মাণ করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চালিয়ে আসছিলেন তারা। কোন প্রকার পূণ:র্বাসন ও ক্ষতিপূরণ ছাড়াই তাদের উচ্ছেদ করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন ব্যবসায়ীরা। এসময় চরম ক্ষোভ প্রকাশ করে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন ক্ষতিগ্রস্থরা।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে গণমাধ্যমে কোন কথা বলতে রাজি হননি উচ্ছেদ অভিযানে অংশ নেয়া প্রশাসনের কেউ।

ঘটনার সময় সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে জেলা শহরে অবস্থিত স্থানীয় এমপি শাহাজাহান কামালের বাসভবন ও মার্কেটের সামনে শহরের মেইন সড়কে র‌্যাব, পুলিশ, সড়ক ও জনপথ বিভাগের পোশাক পরিহিত কয়েকজন সদস্য, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মাসুম ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. মামনুর রশিদ অবস্থান নেন। এসময় প্রায় পাঁচ ঘন্টাব্যাপী বেকু ও বুলডেজার দিয়ে ১১ টি দোকান উচ্ছেদ করে তারা। এসময় ক্ষতিগ্রস্থ দোকানীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠে চাপা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। অনেকে রাস্তায় কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। কেউ কেউ অভিযোগ করেন স্থানীয় এমপি’র বাসভবন ও মার্কেটের সামনের রাস্তা পরিস্কার করতে এ অভিযান চালানো হয়।


ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা জানান, দীর্ঘ ৭০ বছর ধরে জেলা পরিষদ থেকে ইজাড়া নিয়ে দোকান ঘর নির্মাণ করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চালিয়ে আসছিলেন তারা। হঠাৎ ২০১৭ সালের দিকে সড়ক প্রশস্থ করণের নামে তাদের ইজাড়া নবায়ন বন্ধ করে দেয় জেলা পরিষদ। এর পর গত ২৭ মে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযানের নোটিশ পান তারা।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উচ্ছেদ অভিযানে আসা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটরা গণমাধ্যমে কোন কথা বলতে রাজি হননি।
তবে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান মুঠোফোনে জানান, রাস্তা প্রশস্থ করণের দাবীর প্রেক্ষিতে জনস্বার্থে ৪ শতাংশ জমি জন্য সড়ক ও জনপথ বিভাগের আবেদন গ্রহণ করে জেলা পরিষদ। রাস্তা ছাড়া বাকি সম্পদ জেলা পরিষদেরই মালিকানাধীন থাকবে জানান তিনি।


© স্বত্ব ২০২০ | About-US | Privacy-PolicyContact