আজ বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:২৩ পূর্বাহ্ন

Logo
সংবাদ শিরোনাম:
লক্ষ্মীপুরে নির্বাচনী সহিংসতায় ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি নিহত ভোটকেন্দ্রে পুলিশকে টাকা দিতে মেয়রের জোরাজুরি লক্ষ্মীপুরে দুই প্রার্থীদের মধ্যে সংঘর্ষ,আহত,৬,গাড়ি ভাংচুর, ৩৯জন অস্ত্রসহ আটক লক্ষ্মীপুরে নারী দিয়ে ব্যাল্কমেলিং করে চাঁদাবাজি,এক যুবক গ্রেপ্তার দল-মত নির্বিশেষে সমন্বিতভাবে কাজ করে যাওয়ার আহ্বান প্রেসিডেন্টের লক্ষ্মীপুরে ১৫টি ইউপিতে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পেলেন যারা লক্ষ্মীপুর জেলা বিএনপির স্মারকলিপি প্রদান যাত্রী সেজে লক্ষ্মীপুরে অটোরিকশা চালককে হত্যার অভিযোগ বাবার বুকে অস্ত্র ঠেকিয়ে মেয়েকে অপহরণ, গ্রেপ্তার-৫, রিমান্ডের আবেদন লক্ষ্মীপুরে ট্রাকে কেড়ে নিল দুই শিক্ষাথীর প্রাণ,প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ
২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা: লক্ষ্মীপুরের মেঘনায় মাছ শিকারে প্রস্তুতি নিচ্ছে জেলেরা

২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা: লক্ষ্মীপুরের মেঘনায় মাছ শিকারে প্রস্তুতি নিচ্ছে জেলেরা

আব্বাছ হোসেন,লক্ষ্মীপুর:
নিষেধাজ্ঞার ২২দিন পর লক্ষ্মীপুরের মেঘনা নদীতে মাছ শিকারের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে জেলেরা। তাই জাল ও নৌকাসহ সব ধরনের কাজ সেরে নিতে মাছঘাটগুলোতে ব্যস্ত সময় পার করছেন তারা। এবার নদীতে সফল অভিযান হয়েছে বলে দাবী করেন মৎস্য ব্যবাসায়ী ও জেলেরা।
জেলা মৎস্য অফিস সূত্রে জানা যায়, প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ রক্ষায় লক্ষ্মীপুরের রামগতির আলেকজান্ডার থেকে চাঁদপুরের ষাটনাল এলাকার ১শ’ কিলোমিটার পর্যন্ত মেঘনা নদীর ইলিশের অভয়াশ্রম ঘোষিত এলাকায় ৪ অক্টোবর মধ্য রাত থেকে ২৫ অক্টোবর মধ্য রাত পর্যন্ত ২২ দিন ইলিশসহ সকল প্রকার মাছ ধরা নিষিদ্ধ ছিল। এসময় সব রকমের ইলিশ সংরক্ষন, আহরন, পরিবহন, বাজারজাত করন ও মজুদকরন বন্ধ রয়েছে। আর নদীতে মাছ ধরা নিষেধাজ্ঞা উঠে যাবে ২৫ অক্টোবর মধ্যরাতে। তাই মাছঘাটগুলোতে জেলেরা মাছ ধরার ইঞ্জিন চালিত ট্রলার ও ছোট নৌকা এবং জালসহ আনুসাঙ্গিক কাজ সেরে নিতে চান।

এই কারনে যে যার মত করে সব ঠিকঠাক করে নদীতে মাছ শিকারের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে। ফলে জেলেরা নদীরপাড় ও মাছঘাটগুলোতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। এই জেলায় প্রায় ৫২ হাজার জেলের মধ্যে ৪২ হাজার নিবন্ধিত জেলে রয়েছে। সবাই মেঘনা নদীতে মাছ শিকার করে জীবিকা নির্বাহ করে। এ দিকে ২২দিনের নিষেধাজ্ঞার ২১দিনে ২৫৫টি অভিযানে পরিচালনা করে প্রায় সাড়ে তিন লাখ মে.টন জাল জব্দ করা হয়। যার বাজার মূল্যে কোটি টাকারও বেশি। এছাড়া ১৭ জেলেকে জেল-জরিমানা করা হয়।

মতিরহাট এলাকার জেলে শরীফ উদ্দিন,ইউনুছ ও মজুচৌধুরীরহাটের মিজান ও আবদুল খালেকসহ অনেকে জানান, প্রতিবছর ও নদীতে অভিযান চলে। তবে এবারের মত নদীতে অভিযান আর হয়নি। মা ইলিশ রক্ষায় ও উৎপাদনের লক্ষ্য এবারের অভিযান সফল হয়েছে। তবে অভিযান চলাকালীন সময়ে জেলেদের ২০ কেজি হারে ভিজিএফের চাল দেয়া হয়। কিন্তু এখনো অনেক জেলে পায়নি। পরিবার পরিজন নিয়ে খুব কষ্টে দিনাতিপাত করতে হয়েছে। নিষেধাজ্ঞা উঠে যাবে ২৫ অক্টোবর মধ্যে রাতে। এরপর আবারও পুৃরোদমে নদীতে মাছ ধরা শুরু হবে। তাই নৌকা ও জালসহ অন্যান্য কাজ সেরে নিয়ে নদীতে মাছ ধরার জন্য প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, এ পর্যন্ত নদীতে ২৫৫টি অভিযান পরিচালনা করা হয়। সাড়ে তিন লাখ মে.টন জাল জব্দ করা হয়। ১৭ জেলেকে জেল ও জরিানা করা হয়েছে। এবারের অভিযান সফল হয়েছে বলে দাবী করেন তিনি। অভিযান সফল হওয়ায় গত বছরের চেয়ে ৫হাজার মে.টন ইলিশ বেশি উৎপাদন হবে। এবার উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নিধারন করা হয়েছে ২৫ হাজার মে.টন। জেলায় প্রায় ৫২ হাজার জেলে মেঘনা মাছ শিকার করে জীবিকা নির্বাহ করে।


জেলা প্রশাসক মো. আনোয়ার হোছাইন আকন্দ বলেন,প্রশাসন,পুলিশ,কোষ্টগার্ড ও মৎস্য বিভাগের যৌথ অভিযানে এবারের অভিযান সফল হয়েছে। তারপর বেশ কয়েকজন জেলেকে আটক করে জেল জরিমানা করা হয়েছে। বিশেষ করে জেলেরা সরকারের এ নিষোজ্ঞা মেনে নদীতে যায়নি। গত বছরের চেয়ে এবার ইলিশের উৎপাদন বাড়ার আশা করেন জেলা প্রশাসন।


© স্বত্ব ২০২০ | About-US | Privacy-PolicyContact