আজ বুধবার, ২৯ Jun ২০২২, ১১:৪১ পূর্বাহ্ন

Logo
সংবাদ শিরোনাম:
লক্ষ্মীপুরে নৌকার প্রার্থিতা প্রত্যাহার আ.লীগ নেতার, নেতাকর্মীদের মিশ্র প্রতিক্রিয়া

লক্ষ্মীপুরে নৌকার প্রার্থিতা প্রত্যাহার আ.লীগ নেতার, নেতাকর্মীদের মিশ্র প্রতিক্রিয়া

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি. লক্ষ্মীপুরে উপ-নির্বাচন: নৌকার প্রার্থীর মনোনয়ন প্রত্যাহার করা নিয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। রামগতি উপজেলার আলেকজান্ডার ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী ছিলেন মো. আকবর হোসেন। তিনি আলেকজান্ডার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। আকবর হোসেন প্রার্থীতা প্রত্যাহারের পর এখন মাঠে রয়েছেন,স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী শামীম আব্বাছ,মো. রিয়াজ হোসেন,ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আবুল ফাতাহ। ২৬ মে প্রত্যাহারের শেষ দিন থাকলেও একদিন আগে আওয়ামীলীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেয়।

বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে রামগতি উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কাজী হেকমত আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বলেন, অসুস্থতার কারন দেখিয়ে আকবর হোসেন লিখিতভাবে তার প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। বিষয়টি উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

এদিকে স্থানীয় নেতাকর্মীরা জানায়, আকবর হোসেন ২০ লাখ টাকার বিনিময়ে তদবির করে ঢাকা থেকে মনোনয়ন এনেছেন। অথচ দুঃসময়ের নির্যাতিত নেতা আবু নাসেরের নাম তালিকার ১ নম্বরে পাঠানো হলেও তাকে মনোনয়ন দেওয়া হয়নি। এটি অত্যান্ত দু:খজনক। এ নিয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়ার দাবী করেন তৃনমূলের নেতাকর্মীরা।

গত ৭ জানুয়ারী আলেকজান্ডার ইউপির চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান। এরপর ওই ইউনিয়নের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। আগামী ১৫ জুন এই ইউনিয়নে উপ-নির্বাচন হবে। তৃনমূল থেকে তিনজন চেয়ারম্যান প্রার্থীর নাম কেন্দ্রে পাঠায় উপজেলা আওয়ামীলীগ। তারা হলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু নাসের, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জহির উদ্দিন বাবর, আলেকজান্ডার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আকবর হোসেন। এদের মধ্যে আকবরকে মনোনয়ন দেয় কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ।
এদিকে প্রার্থীতা প্রত্যাহার নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এক স্ট্যাটাস দিয়েছেন আকবর হোসেন। এতে তিনি উল্লেখ করেন, ‘শারীরিক অসুস্থতার কারণে উপ-নির্বাচন থেকে প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেছি। যারা রাতদিন কষ্ট করেছেন, তাদের কাছে আজীবন ঋণী থাকবো। চিকিৎসার জন্য ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়া দিয়েছি।

তবে আকবর হোসেনের ব্যবহৃত মোবাইল নম্বারে বারবার ফোন দিলেও তা বন্ধ পাওয়া যায়।

এবিষয়ে রামগতি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল ওয়াহেদ বলেন, ‘আমরা ওয়ার্ড পর্যায় থেকে নির্বাচনের সব প্রস্তুতি নিয়েছি। হঠাৎ আকবর আমাদের সঙ্গে পরামর্শ না করেই প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেছেন। এটি দলের জন্য অমঙ্গল হবে। আকবরের নাম ৩ নম্বরে পাঠানো হলেও তদবির করে মনোনয়ন এনেছেন। বিষয়টি জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতাদের জানানো হবে। তারপর ব্যবস্থা নেয়া হবে।


© স্বত্ব ২০২০ | About-US | Privacy-PolicyContact